Home / ডিজিটাল মার্কেটিং / এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং / নিশ সাইট / নিশ সাইটের স্টার্ট আপ চেক লিস্টঃনিশ সাইট চালু করার পূর্বেই  যে ২৩ টি কাজ করতেই হবে ।

নিশ সাইটের স্টার্ট আপ চেক লিস্টঃনিশ সাইট চালু করার পূর্বেই  যে ২৩ টি কাজ করতেই হবে ।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর এই যুগে যদি আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং বা কোন নিশ সাইটে কাজ করতে চান তাহলে একজন এসইও কনসালটেন্ট এর মতে  ওয়েবসাইটের মার্কেটিং শুরু করার আগে আপনাকে অবশ্যই যে ২৩ টি কাজ করতে হবে এখানে সেই  বিষয় গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আজকে আমরা নিশ সাইট চালু করার আগেই যা যা করতে হবে তার একটি ধারাবাহিক চেক লিস্ট আপনাদের সামনে তুলে ধরছি। এই রিসার্চ ডকুমেন্টের ফলে আপনি জানতে পারবেন একটা নিশ সাইটের মার্কেটিং বা এসইও করার আগেই   কি কি কাজ করতে হবে সেই সম্পর্কে।

একটা বিষয় তো খুব ভালভাবে পরিষ্কার যে আপনি একটা নিশ সাইট বানাতে চাচ্ছেন। এবং অবশ্যই এটি শুরু করার আগেই আপনাকে আরো কিছু জিনিস করতে হবে।

পোস্টের বিষয় সূচীঃ

নিশ সাইট শুরু করার চেক লিস্টঃ

আমি ধরে নিনাম কীওয়ার্ড রিসার্চ করার পর ডোমেইন নাম রেজিস্টার করেছি, হোস্টিং সেটআপ করেছি, ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করেছি, একটা প্রিমিয়াম থিম আপলোড করেছি এবং প্রয়োজনীয় প্লাগিন সেট আপ করেছি।

কিন্তু এখনো আরো অনেক কিছু করার বাকী আছে ।

এখানে যেগুলো দিয়ে আমি আমার নিশ সাইটের জন্য প্রাকটিক্যালি কাজ করি এবং আমি কাজ করার সময় এই চেকলিস্টগুলি ফলো করি।

1. ওয়ার্ডপ্রেসের ডিফল্ট কন্টটেন্টগুলি ডিলেট করুনঃ

ওয়ার্ডপ্রেস নিশ সাইটে ইনস্টল করার পর সাধারণত কিছু ডিফল্ট কনটেন্ট পাওয়া যায় অর্থাৎ কিছু কনটেন্ট ওয়ার্ডপ্রেসের সাথে আগে থেকেই সংযুক্ত থাকে। যেগুলো মূলত দেওয়া হয় যাতে আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেসের বিভিন্ন অপশন স্যাম্পল আকারে দেখতে পারেন সেজন্য।

তাই প্রফেশনাল ভাবে কাজ করতে চাইলে এই গুলি পরিবর্তন করতে হবে অথবা ডিলেট করে দিতে হবে।

সাধারণত ৩ টি অপশন থেকে এই গুলি ডিলেট করতে পারেন।

  1. পোস্ট অপশন থেকে হেল্লো ওয়ার্ল্ড “ Hello World! ” পোস্টটি ডিলেট অথবা পরিবর্তন করে দিন।
  2. পেজ অপশন থেকে “ Sample Page ” স্যাম্পল পেজ ডিলেট অথবা পরিবর্তন করুন।
  3. প্লাগিন অপশন থেকে হ্যালো ডলি “ Hello Dolly ” প্লাগিনটা ডিলেট অথবা পরিবর্তন করে দিন।

নিশ সাইটের শুরুর চেক লিস্টঃনিশ সাইট চালু করার পূর্বেই যে ২৩ টি কাজ করতেই হবে

2. সাইট টাইটেল এবং ট্যাগলাইন দিনঃ

আপনি হয়তো ইতিমধ্যে যখন ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করেছিলেন তখন সাইটের টাইটেল এবং ট্যাগ লাইন দিয়েছিলেন। তারপরেও এই সাইট টাইটেল এবং ট্যাগলাইনগুলি আরেকবার যাচাই করে নিবেন।

আপনার নিশ সাইটের জন্য সাইট টাইটেলের পাশাপাশি ট্যাগলাইনটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। একটা  অর্থপূর্ণ ট্যাগ লাইন সেট করুন আপনার সাইটের জন্য।

সবকিছু ঠিক করে সেট আপ করে থাকলে ব্রাউজারে ভিজিট করে চেক করে নিন।

নিশ সাইটের শুরুর চেক লিস্টঃনিশ সাইট চালু করার পূর্বেই যে ২৩ টি কাজ করতেই হবে

3. ইউজার রেজিস্টেশন সেটিং পরিবর্তন করুনঃ

আপনার সাইটের সেটিং থেকে ইউজার রেজিস্ট্রেশন বন্ধ করে দিন। এটি চালু থাকলে অর্থাৎ যদি সবাই এখানে রেজিস্ট্রেশন করতে পারে তবে স্পামিং হবার সম্ভাবনা থাকে এবং অটো রেজিস্ট্রেশন জেনারেট হতে থাকবে। এর ফলে পরবর্তীতে সাইটের কিছু প্রবলেম হতে পারে।

তাই আমি অ্যামাজন নিশ সাইটে ইউজার রেজিস্ট্রেশন বন্ধ করে রাখি।

ইউজার রেজিস্টেশন সেটিং পরিবর্তন করুনঃ

ওয়ার্ডপ্রেসে ইউজার রেজিস্ট্রেশন মূলত কমিউনিটি সাইটের জন্য। এবং এই বিশেষ সেবাটির জন্য সেখানে বিশেষ কিছু স্টেপ গ্রহণ করা হয়। কিন্তু নিশ সাইটের জন্য এই অপশন চালু রাখার কোন প্রয়োজন নেই।

4. জ্যাটপ্যাক প্লাগিন সক্রিয় এবং ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে সংযুক্তকরণঃ

ওয়ার্ডপ্রেসে Jetpack Plugin খুবই শক্তিশালী একট এমন একটি প্লাগিন যেখানে এর মাধ্যমে মোটামুটি সকল ধরণের কাজগুলি করতে পারবেন, পোস্ট শেয়ারিং এর অপশসহ।

জ্যাটপ্যাক প্লাগিন ইন্সটলের মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটি ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমের সাথে সংযুক্ত করতে পারবেন।এর ফলে আপনি আরো বেশ কিছু ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন।

 জ্যাটপ্যাক প্লাগিন সক্রিয় এবং ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে সংযুক্তকরণঃ

জ্যাটপ্যাকের ইন্সটলেশন এবং কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ডট কমে কানেন্ট করা যায় সে সম্পর্কে তাদের সাইট থেকে বিস্তারিত গাইডলাইন দেখে নিতে পারেন এখানে  ক্লিক করে।

5. এসইও ফ্রেন্ডলি পার্মালিঙ্ক আপডেড করুনঃ

ওয়ার্ডপ্রেসে বাই ডিফল্ট হিসেবে যে ওয়েবসাইটের পার্মালিঙ্ক দেওয়া থাকে সেটা দেখতে তেমন ভাল নয় এবং এটি ইউজারদের মনে রাখাটাও বেশ শক্ত হবে।

ওয়ার্ডপ্রেসের এই ডিফল্ট পার্মালিঙ্ক স্ট্রাকচারটি সার্চ ইঞ্জিনগুলির জন্যেও এসইও ফ্রেন্ডলি নয়।

পার্মালিঙ্ক আপডেড করার ফলে এটি যেমন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনে সুবিধা করতে পারবে তেমনি এর মাধ্যমে ইউজাররা একটি লিঙ্ক দেখেও বুঝতে পারবে তাঁরা আসলে কি ধরণের পোস্ট পড়তে যাচ্ছে।

আমি আমার সমস্থ নিশ সাইটে “MyDomain.com/Pos-Name ”  এই স্ট্রাকচার ব্যবহার করি। এর ফলে পোস্টের টাইটেলটিই অই পোস্টের লিংকের সাথে সংযুক্ত হয়ে যায়। ইউজাররা সহজেই বুঝতে পারে পোস্টট কি সম্পর্কীত।

এটি করার জন্য আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেসের ড্যাসবোর্ডের সেটিং থেকে পার্মালিঙ্ক সেটিং এ যেতে হবে।

এসইও ফ্রেন্ডলি পার্মালিঙ্ক আপডেড করুনঃ

6. কমেন্ট অপশন চালু রাখুন এবং Akismet প্লাগিন টা স্প্যামিং প্রতিরোধের জন্য কনফিগারেশন করুন।

একটা পোস্টের কমেন্ট এসইও র‍্যাংকিং এর জন্য অনেক সহায়ক হয়।

কিভাবে?

  1. কমেন্ট আপনার কনটেন্টের দৈর্ঘ্য বৃদ্ধি করে এবং যেটি সরাসরি সার্চ ইঞ্জিনের র‍্যাংকিং ফ্যাকটর হিসেবে কাজ করে।
  2. ইউজাররা সাধারণত পোস্টের বিষয় বস্তু সম্পর্কে প্রশ্ন বা আলোচনা করে যেটা আরো বেশি লং টেইল কীওয়ার্ড সংযুক্ত হয়।
  3. নতুন কমেন্ট মানেই নতুন কনটেন্ট আগের পোস্টের জন্য যেটা গুগল বটস বা রোবট ডট টেক্স ওয়েবসাইট ক্রোলিং করার সময় পুরাতন পোস্টে নতুনত্ব পায়। এর ফলে গুগল মনে করে সাইটে প্রতিনিয়ত আপডেড হচ্ছে।অর্থাত সাইটি কোয়ালিটি সম্পন্ন এবং এর ফলে সাইটি সহজেই এসইও র‍্যাংকিং এর জন্য প্রাধণ্য পায়।

এটা ঠিক যে অ্যামাজন এফিলিয়েট নিশ সাইটের জন্য কমেন্ট একটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে কিন্তু আজকাল স্প্যামিং এর কারণে প্রচুর পরিমাণ কমেন্ট সাইটে জমা হয়। যে অত্যন্ত বিরক্তিকর বটে!

কমেন্ট অপশন চালু রাখুন এবং Akismet প্লাগিন টা স্প্যামিং প্রতিরোধের জন্য কনফিগারেশন করুন।

আমি তাই Akismet  প্লাগিনটা ব্যবহারের পরামর্শ দিবো। এটি ব্যবহারের ফলে একই সাথে আপনি স্প্যামিং যেমন রোধ করতে পারবেন তেমনি আপনি অনেক সহজেই আপনার রিয়েল ইউজারদের কমেন্ট মনিটরিং করতে পারবেন।

7. একটি ব্যাকআপ প্লাগিন ইনস্টল করুন এবং কনফিগারেশন করুন।

ব্যাকআপ প্লাগিন ছাড়া যেকোন সময়ে আপনি আমার সমস্থ কাজ হারিয়ে ফেলতে পারেন।

একটা ব্যাকআপ প্লাগিন ইনস্টল করতে খুব বেশি সময় লাগে না এবং এটি আপনার ব্যাকআপ নিয়ে টেনশন কমিয়ে দিবে।

ব্যাকআপের প্লাগিনের মধ্যে আমি “ BAckWpup ”  প্লাগিনটা ব্যবহার করি। এটির মাধ্যমে খুব সহজেই ব্যাকআপ আপনার ক্লাউডে সংরক্ষণ করতে পারবেন। এটির মাধ্যমে আপনি শিডিউল অনুযায়ী ব্যাকআপ করতে পারবেন এবং প্রয়োজন হলে ব্যাকআপের ভার্শন অনুযায়ী আপনি সহজেই রিস্টোর করতে পারবেন।

আপনি এই ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাকআপ প্লাগিনটা ইনস্টল করতে পারেন এবং চিন্তামুক্ত থাকতে পারেন।

আপনি চাইলে “BordPres Backup to Dropbox” প্লাগিনটাও ইনস্টল করতে পারেন। এটিও অটোমেটিক্যালি আপনার সাইট শিডিউল অনুযায়ী আপনার ড্রপবক্স একাউন্টে ব্যাকআপ করবে।

8. সিকিউরিটি প্লাগিন ইনস্টল করুনঃ

একটা সিকিউরিটি প্লাগিন ছাড়া আপনার সাইট যেকোন সময়ে হ্যাক হতে পারে এবং আপনি একটি বিশাল বড় সমস্যায় পড়তে পারেন।

মনে রাখবেন ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে হ্যাকিং করার জন্য ম্যালিসিয়াস হ্যাকারদের জন্য প্রথম পছন্দের সাইট। উল্লেখ্য যে, অনেকই সিকিউরিটি প্লাগিন ইনস্টল করার পরো সঠিক গাইডলাইন মেনে ইনস্টল না করার জন্য কিছু সমস্যায় পড়ে। তাই আপনি সিকিউরিটি প্লাগিনটা ইনস্টল করার আগে তাদের নির্দেশনার গাইডলাইনটি ভাল করে দেখে নিবেন।

আমি যে সিকিউরিটি প্লাগিনটা ব্যবহার করি সেটা হচ্ছে “ All in One WP Security and Firewall ” প্লাগিন। এই প্লাগিনটায় কিছু অতিরিক্ত ফিচার আছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি সহজেই ম্যালিসিয়াস হ্যাকারদের এট্যাক হওয়া থেকে সাইটটি মুক্ত করতে পারবেন।

প্লাগিনটার লিঙ্ক টা দিয়ে দিয়েছি। আপনি গাইডলাইনটি আগে পড়ে বুঝে তারপর সঠিকভাবে ইনস্টল করুন।এবং আপনার সাইটটিকে নিরাপদ রাখুন।

9. YOAST SEO প্লাগিনটা ইনস্টল করুন এবং কনফিগারেশন

আপনার এফিলিয়েট নিশ সাইটটি শুরু করার আগে এই “YOAST SEO” প্লাগিনটা ইনস্টল করে নিবেন। এটি আপনাকে এসইও সংক্রান্ত সমস্থ কিছু সহজেই ম্যানেজ করতে সাহায্য করবে।

এসইও এক্সপার্টদের মতে আপনার সাইটটিকে এসইও ফ্রেন্ডলি করতে এই প্লাগিনটা অনেক সাহায্য করে।

এই প্লাগিনটার মাধ্যমে আপনার সাইটিকে গুগলের নির্দেশনা মেনে সাইটটিকে ইনডেক্সিং করতে সাহায্য করবে এবং এটিই পরবর্তিতে অটোমেটিক্যালি সাইটটিকে ওয়েবমাস্ট টুলের সাইটম্যাপ করতে সাহায্য করবে।

“YOAST SEO”  প্লাগিনটার ফ্রি ভার্শনই অ্যামাজন নিশ সাইটের জন্য যথেষ্ট। আপনাকে এর প্রিমিয়াম ভার্শন ব্যবহার করার কোন প্রয়োজন নেই।

আপনি যদি এই প্লাগিনটার ব্যবহার সম্পর্কে ভাল ভাবে না জেনে থাকেন তবে আপনি তাদের সাইট থেকে গাইডলাইন অথবা আপনি ইউটিউবে সার্চ করে দেখে নিতে পারেন।

10. আপনার “Contact Form” টি কাজ করছে কি’না চেক করুনঃ

আপনি যদি এই “কন্টাক্ট ফর্ম” টির ব্যবহার না করে থাকেন তাহলে আপনি আপনার ভিজিটরের ফিডব্যাক পাওয়া থেকে বঞ্চিত হতে পারেন। এটির আরেকটি সুবিধা হচ্ছে এটি ব্যবহার করার ফলে আপনার নেটওয়ার্কিং টা ঠিক থাকবে এবং আপনার ব্র্যান্ড বিল্ডআপে সাহায্য করে।

নিশ সাইটকে সফল ভাবে পরিচালনা করতে আপনার এটি ব্যবহার করতে হবে। হতে পারে এটির মাধ্যমে আপনার সাথে অন্য নিশ সাইট মালিকগণ যোগাযোগ করতে পারে। অন্য কোন সিমিলার ওয়েবসাইটের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে আপনিও নিশ্চয় এই অপশনটিরই ব্যবহার করবেন । নয়’কি?

কন্ট্রাক ফর্ম ব্যবহার করার আগে আপনার মেইলটি যেটা সব সময় ব্যবহার করবেন সেটি ঠিক করুন, টেস্ট মেসেস দিয়ে যাচাই করুন সব কিছু আপনি যেমনটি চাচ্ছেন তেমনটি হচ্চে কি’না?

11. ডিজাইন এবং লোগো সেট করুনঃ

যারা অ্যামাজন নিশ সাইট নিয়ে কাজ করে তাঁরা প্রথমেই সাইটটিকে গুড লুকিং এর জন্য ডিজাইনে মনোযোগ দেয় না।  মোটামুটি প্রাথমিক ভাবে যাতে ঝকঝকে দেখা যায় অন্তত সেই রকম করে ডিজাইন করা উচিৎ।

আপনি নিজেই এই কাস্টমাইজেশনটা করতে পারবেন। খুব সহজেই এটি আপনি এটি আপনার থিমের সেটিং থেকে ইচ্ছা অনুযায়ী কাস্টমাইজেশন করে নিতে পারবেন।

আরেকটি বিষয়, লোগো ডিজাইনে আপনার সময় দেওয়া উচিৎ, প্রয়োজনে প্রফেশনাল  গ্রাফিক্স ডিজাইনার দ্বারা আপনি একটি লোগো ডিজাইন করে নিতে পারেন

আমি আমার ক্ষেত্রে, অনলাইন থেকে বিভিন্ন ফ্রি ভেকটরগুলি ডাউনলোড করে নিই এবং ফটোশপে ইডিট করে ব্যবহার করি।

তবে নিশ সাইটের জন্য একটা ভাল মানের লোগো এবং মোটামুটি একটা ডিজাইন অবশ্যই লাগবে।

12. কিছু অত্যাবশ্যিয় পেজ তৈরী করুনঃ

আমি অ্যামাজন গাইডলাইনটিতে ব্যাখ্যা করেছি এই বিষয়ে ইতিমধ্যেই।

তারপরেও এখানে সংখিপ্তভাবে এটি বলে দিচ্ছিঃ

আপনাকে কয়েকটি পেজ অবশ্যই আপনার সাইটে সংযুক্ত করতে হবে। সেগুলো হলোঃ

  1. About
  2. Contact
  3. Privacy Policy
  4. Affiliate Disclosure.

এই পেজগুলি গুগল ইনডেক্সিং এর জন্যও Mandatory Page হিসেবে বিবেচিত। এটি গুগলকে বুঝতে সাহায্য করে আপনার সাইটির গুরুত্ব সম্পর্কে।

এই পেজগুলি অবশ্যই আপনার সাইটে তৈরী করে সেগুলো ফিলাপ করবেন।

13. নিশ্চিত করুন সোশ্যাল শেয়ারিং ঠিক মত কাজ করছে।

সোশ্যাল শেয়ারিং আপনার সাইটকে সোশ্যাল শেয়ারিং করতে সাহায্যক করবে।

অনেকেই পোস্টের মাঝে অথবা সাইডবারে সোশ্যাল শেয়ারিং বাটন সংযুক্ত করে যা মোটেই উচিৎ নয়। এটি সব সময় পোস্টের শেষে সংযুক্ত করবেন।

সবথেকে ভাল হয় শুধু আইকনযুক্ত বাটন ব্যবহার করতে পারলে।

সোশ্যাল শেয়ারিং আপনার সাইটকে সোশ্যাল শেয়ারিং করতে সাহায্যক করবে।

যেমনটিই হোক না কেন একটি সোশ্যাল শেয়ারিং প্লাগিন ব্যবহার করুন। এবং এটি দ্বারা ঠিকমত কাজ হচ্ছে কি’না সেটি যাচাই করুন।

14. অন্তত ১০ টি কনটেন্ট দিনঃ

অনেকেই ২ -৩ টি পোষ্ট দিয়েই এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করে দেয়। এটি মোটেও ঠিক নয়। আপনি যখন মার্কেটিং করা শুরু করবেন তখন বিভিন্ন জায়গা থেকে ভিজিটর আপনার সাইটে আসতে শুরু করে। কিন্তু আপনার সাইটে যদি দুই তিনটা পোস্ট থাকে তাহলে তাতে ভিজিটরের তৃপ্তি হবে না। বরং আপনার লিঙ্ক ধরে আপনার সাইটে এসে আবার ফিরে যেতে পারে। এতে আপনারই ক্ষতি।

তাই আমি কমপক্ষে ১০ টিরো বেশি কনটেন্ট দিয়ে তারপর মার্কেটিং শুরু করি। প্রতিটি ক্যাটাগরি থেকে কমপক্ষে ২ টি পোস্ট থাকতেই হবে।

একটা রেস্টুরেন্টের ১ পদের খাবার রান্না করে আপনি সব রকম কাস্টমারকে আহবান করতে পারেন না।

15. সোশ্যাল মিডিয়া প্রফাইল তৈরী এবং সাইটের সাথে সংযুক্তকরণঃ

অ্যামাজন নিশ সাইটের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া প্রফাইল অবশ্যই লাগবে আপনার রিয়েলটাইম ভিজিটরের সাথে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য।

আপনি আপনার সাইটের ফেসবুক, টুইটার, পিন্টারেস্ট, রেড্রিট সহ কয়েকটি সোশ্যাল মিডিয়া প্রফাইল তৈরী করুন এবং সাইটের সাথে লিঙ্ক আপ করে দিন।

সোশ্যাল মিডিয়া প্রফাইল তৈরী এবং সাইটের সাথে সংযুক্তকরণঃ

16. সাইটের লোডিং স্পীড চেক করুনঃ

আপনার সাইট যদি স্লো হয়ে যায় তাহলে এটা আপনার ভিজিটরদের উপর নেগেটিভ প্রভাব পড়বে।

৪০% এরও বেশি ভিজিটর ফিরে যায় যদি কোন সাইট ৩ সেকেন্ডের মধ্যে লোড না হয় তো।

সাইট স্পীড এখন গুগল র‍্যাংকিং এর জন্য একটা ফ্যাক্টর হয়ে গেছে। তাই আপনি আপনার সাইটের লোডিং কি রকম সেটা একবার যাচাই করে নিন।

ওয়েবসাইটের স্পীড  চেক করতে আমি “Google PagesSpeed” এবং “Pingdom” দু’টি টুলস ব্যবহার করি। এই দু’টো সার্ভিস বিনামূল্য। এবার আপনি আপনার সাইটটিকে একবার এই টুলস ব্যবহার করে দেখুন।

গুগল পেজ স্পীড চেকার, স্পীড চেকার টেস্ট

17. সাইটম্যাপ তৈরী করুনঃ

ভাল ভাবে ওয়েবসাইটের  সাইটম্যাপ তৈরী করতে পারলে গুগল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে আপনার সাইটটি ইনডেক্স করা অনেক সহজ হয়ে যাবে।

আপনার অ্যামাজন নিশ সাইট চালু করার আগেই অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিন আপনার “সাইটম্যাপ” সম্পন্ন করা আছে।

“ YOAST SEO” প্লাগিনে সাইটম্যাপ জেনেরেটর টুলস আছে এবং আপনি সহজেই জাস্ট এনাবল করে দিয়ে গুগলের সাইটম্যাপ সাবমিট করতে পারবেন।

18. Google Webmasters সেট আপ করুনঃ

গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস আপনাকে একটা সার্চ ইঞ্জিনের অপটিমাইজেশনের জন্য যা যা দেখার প্রয়োজন হবে তার সব কিছু দেখতে সাহায্য করবে। তাই আপনাকে অবশ্যই আপনার গুগল ওয়েবমাস্টার টুলসটি সেটআপ করতে হবে।

SEO Strategy চেক করার জন্য নিচের জিনিসগুলি জানা একান্ত প্রয়োজন

  1. Query
  2. Impressions
  3. Clicks
  4. Click Thru Ratio (CTR)
  5. Average Position

এইগুলো আপনি কিভাবে পেতে পারেন?

কোন ব্যাপার না, এইগুলো আপনি খুব সহজেই ওয়েবমাস্টার টুলসটি ব্যবহার করলে দেখতে পারবেন।

আপনার তো অবশ্যই একটি জিমেইল একাউন্ট আছে। আপনাকে শুধু এই গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস ব্যবহার করার জন্য সাইনআপ করতে হবে। বাকীটা আপনি বুঝে যাবেন।

19. Google Analytics সেটআপ করুনঃ

আপনি যদি আপনার সাইটটি ইম্প্রুপ করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই গুগল এনালাইটিক্স সম্পর্কে জানতে হবে। এটি আপনাকে আপনার সাইট সম্পর্কে সকল তথ্য ফ্রিতে দিয়ে দিবে।

এটা গুগলের প্রডাক্ট এবং ফ্রিতে আপনি সেসব সার্ভিস পেতে পারেনঃ

  • ভিজিটর সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন ( ওয়েবসাইটের টোটাল ভিজিটরের সংখ্যা, এভারেস, বিভিন্ন অঞ্চল ভিত্তিক ডেটা, ভাষা আরো অনেক কিছু)
  • কোন ভিজিটর আপনার সাইটে কি পরিমাণ সময় দিচ্ছে , কোন পোস্ট পড়ছে ইত্যাদি।
  • আপনার কোন পেজটি সব থেকে ভাল পারফর্ম করছে , কোনটা কম সব কিছু জানতে পারবেন।
  • আপনার ওয়েবসাইটে দিনের টোটাল ভিজিটর কতজন, জানতে পারবেন।
  • আপনার ট্র্যাফিক সোর্স  সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন যেমন ট্র্যাফিক কোথায় থেকে আসছে, রেফারেল ওয়েবসাইটের বিস্তারিত তথ্য, কোন সোর্স থেকে সব থেকে বেশি ভিজিটর আসছে কোন সোর্চ থেকে কম ভিজিটর আসছে ইত্যাদি বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।

এটা ব্যবহার করলে আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন আপনার সাইটির জন্য কোন অংশের কি রকম প্রভাব পড়ছে। আপনি যদি নির্দিষ্ট অঞ্চল ভিত্তিক বিজনেস করতে চান তাহলে কিভাবে আপনি আরো উন্নতি করতে পারবেন সেটাও এর মাধ্যমে জানা যাবে।

 

গুগল প্রডাক্টের সব সার্ভিস একটা জিমেইলের মাধ্যমে শুধু সাইন আপ করলেই সেই সুবিধা পাওয়া যাবে।Google Webmasters সেট আপ করুনঃ

20. আপনার সাইট মোবাইল ফ্রেন্ডলি কি’না যাচাই করুনঃ

আপনি অনেক ভাল কনটেন্ট লিখেছেন,আপনার সাইট ডিজাইন সহ অন্যান্য সব কিছু করলেও আপনার সাইট যদি মোবাইল ফ্রেন্ডলি না হয় তাহলে ভারী বিপদ।

আপনি গুগলের মোবাইল ফ্রেন্ডলি চেকার টুলসটি বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারেন।

ওয়েবসাইটকে গুগলের মোবাইল ফ্রেন্ডলি টুলস দ্বারা চেক করূন, ব্রাউজার ফ্রেন্ডলি চেকার টুলস

বর্তমানে অধিকাংশ মানুষই ট্যাবলেট কিংবা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ভিজিট করে।

আপনার ওয়েবসাইট মোবাইল ফ্রেন্ডলি কি’না সেটা যাচাই করতে পারেন এই টুলস লিঙ্ক ব্যবহার করে।

মোবাইল ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট চেকিং, মোবাইল ফাংশনালি যাচাই, ব্রাউজার ফ্রেন্ডলি যাচাই করুন

21. Favicon সংযুক্ত করুনঃ

আপনি যখন আপনার সাইটে প্রতিটি ক্যাটাগরিতে এবং মেনুতে ফেভিকন ব্যবহার করবেন সেটা আপনাকে আরো বেশি প্রফেশনাল করে তুলবে।Favicon সংযুক্ত করুনঃ

এখানে আমি একটা চমৎকার টুলস ব্যবহার করতে বলছি যেটার মাধ্যমে আপনি সহজেই আপনার ফেভিকনগুলি জেনারেট করতে পারবেন।

লিংকঃ “Creation Tool

অবশ্য এখন অধিকাংশ ওয়ার্ডপ্রেসে ডিফল্ট হিসেবে ফেভিকন অপশন থাকে। তবে আপনাকে একটি ফেভিকন অবশ্যই সেট করতে হবে।

22. Amazon Affiliate Disclaimer ফুটারে সংযুক্ত করুনঃ

অ্যামাজনের এফিলিয়েটের শর্তানুযায়ী আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটে একটা “Amazon Affiliate Disclaimer” সংযুক্ত করতে হবে যেখানের এফিলিয়েট লিংক নিয়ে আপনি কাজ করবেন।

যেহেতু আপনার ফুটার সাইটের প্রতিটি পেজে ডিফল্ট হিসেবে দেখা যাবে তাই এই স্থানটিই হলো সব থেকে ভাল জায়গা এই ডিস্ক্লাইমার এড করার জন্য।

আপনি এটি আপনার থিমের সেটিং থেকে ফুটার অপশনে ইডিটের মাধ্যমে করতে পারেন।

23. সকল ব্রাউজারের ফ্যাংশনাল কি’না চেক করুনঃ

অধিকাংশ ইউজাররাই আপনার সাইটটিকে একটি লেটেস্ট ব্রাজার যেমন ক্রোম, মজিলা ফায়ারফক্স, মাক্রোসফট ব্রাউজার বা অন্যান্য ব্রাউজারে দেখে থাকে।

তাই আপনি যদি আপনার সাইটটিকে ব্রাউজারের মত করে প্রদর্শিত না করতে পারেন তাহলে সব বরবাদ হয়ে যাবে। ভিজিটর আলাদা আলাদা ব্রাউজারে ভিজিট করার সময় আলাদা আলাদা রকম দেখবে ফলে আপনার কনটেন্ট যথাযথভাবে উপস্থাপন না হওয়ার ফলে ভিজিটর ধরে রাখা সম্ভবপর হবে না।

আপনি এখানে এই লিংক এ ক্লিক করে আপনার ওয়েবসাইট ব্রাউজার ফ্রেন্ডলি কি’না সেটা যাচাই করে নিতে পারেন।

পূনশ্চঃ

এইগুলো আপনি একবার করতে পারলে পরের বার এইগুলো খুবই সিম্পল হয়ে যাবে আপনার জন্য।

অ্যামাজন এফিলিয়েট নিশ ওয়েবসাইট তৈরীর ধারাবাহিক চেকলিস্টগুলি

কোন প্রশ্ন বা মতামত জানাতে পারেন। উত্তর দেওয়ার চেস্টা করবো ইনশাআল্লাহ্‌।

Leave a Reply

Your email address will not be published.