Home / অন্যান্য / শার্লক হোমসকে লিখা চিঠিগুলি

শার্লক হোমসকে লিখা চিঠিগুলি

চিঠি প্রসংগে কিছু কথাঃ

শার্লক হোমস রচনা সমগ্র পড়ার সময় এর মধ্যে কয়েকটি চিঠি পাই।
এই সব চিঠিপত্র তার কাছে লিখেছেন তার মক্কেলগন। আর তারা ছিলেন সেই সময়ের নামকরা, প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব। তাদের সমস্যা সমাধানের জন্য শার্লক হোমসের কাছে লিখা চিঠিতে সেই উন্নততর ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠে।
সত্যি বলতে চিঠিগুলো আমার দারুন লেগেছে। আমি মাঝে মাঝেই এই চিঠিগুলি পড়ি। তাই
এই চিঠিপত্র গুলি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

প্রথম চিঠিঃ

প্রিয় মিষ্টার শার্লক হোমস,
এই বাড়িতে এমন সব অদ্ভুত ঘটনা ঘটছে যে আপনার পরামর্শ একান্ত দরকার বলে মনে করছি। আগামীকাল বাড়ীতেই থাকবো আমি। যে কোন সময়ে এলেই দেখা হবে। উইল্ড স্টেশন থেকে সামান্য পথ আমার বাড়ী।
আমার স্বর্গত স্বামী মর্টিমার মেবার্লি আপনার মক্কেল হয়েছিলেন এক সময়।
আপনার বিশ্বস্থ
মেরি মেরার্লি
থ্রী গেবলস, হ্যারো, উইল্ড।

পেজ নং ৫৮৩
গল্পঃ এডভেঞ্চার অব দ্য থ্রি গেবলস

 

দ্বিতীয় চিঠিঃ

একটা বিদঘুটে অভিজ্ঞতা বড্ড চিন্তায় ফেলেছে। আপনার পরামর্শ দরকার –
স্কট ইক্লিস।

টেলিগ্রাম

পেজ নং ৪৯৪
গল্পঃ এডভেঞ্চার অব উইসটেরিয়া লজ

 

তৃতীয় চিঠিঃ

প্রিয় ওয়াটসন,
পুচঁকে ফেল্পসকে নিশ্চয় ভুলে যাও নি। তুমি পড়তে ক্লাশ থ্রীতে আমি ফাইভে। সম্প্রতি মামার জোরে বৈদেশিক দপ্তরের কাজে এসে ঠেকেছি। যশ খ্যাতি সবই পেয়েছি এখানকার কাজে এসে। কিন্তু বর্তমানে এক ভায়াবহ সর্বনাশের মুখোমুখি হয়ে তোমার শরণ নিতে বাধ্য হচ্ছি। ক্রমাগত ব্রেনফিভারে ভুগে ভুগে আমি এখন শয্যাশায়ী। চিঠিটাও নিজের হাতে লিখতে পারছি না। একবার এসো, সব খুলে জানাবো। তোমার সাহায্য নিয়ে আমি একবার শেষ চেস্টা করে দেখতে চাই। তোমার বন্ধু শার্লক হোমস্কেও সঙে আনার অনুরোধ জানাচ্ছি। তার পরামর্শ একান্ত দরকার। দেরী করো না।
তোমার হারানো দিনের বন্ধু
পার্সি ফেল্পস

পেজ নং ৩৭৩
গল্পঃ নেভ্যাল ট্রীট

 

চতুর্থ চিঠিঃ

কাল দুপুরে উইঞ্জেস্টরে ব্লাক সোয়ান হোটেলে দেখা করবো- আসবেন। খুব গোলমালে পড়ে গেছি। – হান্টার।

টেলিগ্রাম।

পেজঃ ২৯৭
গল্পঃ এডভেঞ্চার অব দ্যা কপার বীচেস

 

পঞ্চম চিঠিঃ

প্রিয় মি. হোমস,
গৃ্হশিক্ষয়িত্রীর একটা চাকরির সন্ধান এসেছে- চাকরিটা নেবার বেপারে আপনার পরামর্শ নিতে চাই। আপনার সুচিন্তিত মতামতের উপর চাকরি নেওয়া না নেওয়া নির্ভর করবো। কাল সকাল সাড়ে ১০ টায় দেখা করছি।
আপনার বিশ্বস্থ
ভায়োলেট হান্টার।

পেজ নং ২৯৪
গল্পঃ এডভেঞ্চার অব দ্যা কপার বীচেস

 

ষষ্ঠ চিঠিঃ

প্রিয় কাকা,
বুঝতে পারছি, আমার জন্যই আজ তোমার এই দুর্বিপাক। তাই এ বাড়ীতে থাকা আর উচিৎ মনে হচ্ছে না আমার। আমি চললাম। জানি না কোন দিন মনের শান্তি ফিরে পাব কিনা। আমার জন্য ভেব না। খোঁজাখুঁজির চেস্টা করো না। পাবে না।
তোমার আদরের
মেরী।

পেজ নং ২৯১
গল্পঃ এডভেঞ্চার অব দ্য বেরিল করোনেট

 

সপ্তম চিঠিঃ

প্রিয় মি. শার্লক হোমস,
আপনি ব্যস্থ মানুষ আমি জানি। তবু অনুরোধ জানাচ্ছি অন্য কাজ থাকলে বাতিল করে কাল একবার বাড়ী থাকবেন। আমার বিয়ের ব্যাপারে আপনার সঙে কথা বলতে চাই। চারটে নাগাত আসবো। স্কক্লল্যান্ডইয়ার্ডের মি. লেসট্রেড নিজে রহস্য যবনিকা উন্মোচনের চেস্টা করছেন। তিনিই পরামর্শ দিয়েছেন – আপনিও যদি এ সম্পর্কে চিন্তা করেন তাহলে সমস্যার সুরাহা হতে পারে।
আপনার বিশ্বস্থ
স্টেন সাইমন।

পেজ নং ২৭৬।
গল্পঃ এডভেঞ্চার অব দ্য নোবল ব্যাচেলর

 

অষ্টম চিঠিঃ

আজ রাত ৭ টায় লিসিয়াম থিয়েটারের বাইরে বাঁ দিকের তৃতীয় থামের গোড়ায় উপস্থিত থাকবেন। প্রয়োজন বোধ করলে সঙে দু’একজন বন্ধু আনতে পারেন। তবে পুলিশ এনে সব পন্ড করবেন না। অনেক অবিচার আপনার উপর হয়েছে – এবার তার সুবিচার হবে।
আপনার অজ্ঞাত বন্ধু।

পেজ নং ৬২।
গল্পঃ সাইন অফ ফোর।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *